প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো ফলমূল ও মিষ্টান্ন পেলেন মুক্তিযোদ্ধারা

প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো ফলমূল ও মিষ্টান্ন পেলেন মুক্তিযোদ্ধারা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে আজ সকালে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পুনর্বাসন কেন্দ্রে (মুক্তিযোদ্ধা টাওয়ার-১) যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে ফলমূল এবং মিষ্টান্ন বিতরণ করা হয়েছে।

ফল ও মিষ্টি হস্তান্তর করেন প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এ. বি. এম. সরওয়ার-ই-আলম সরকার। অনুষ্ঠানের শুরুতেই উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধা এবং যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধারা এক এক করে বক্তব্য রাখেন।

এ.বি.এম. সরওয়ার-ই-আলম সরকার এর বক্তব্য শেষে মুক্তিযোদ্ধা টাওয়ার-১ এর বাসিন্দাদের উপস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে পাঠানো ফলমূল ও মিষ্টান্ন মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

মুক্তিযোদ্ধাগণ তাঁদের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তাঁরা বলেন ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করার পর অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীরা মুক্তিযোদ্ধারা মূল্যায়ন তো করেনি বরং নানাভাবে তাঁদের হয়রানি করেছে এবং অসম্মানিত করেছে। এটা করেই স্বৈরশাসকরা থেমে যায়নি, তারা ইতিহাস বিকৃতির মাধ্যমে এদেশের গৌরবময় ইতিহাসকে কলঙ্কিত করেছে।

সব শেষে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব তাঁর বক্তব্যের মাধ্যমে বাঙালি জাতির সূর্যসন্তানদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জনের মাধ্যমে বাঙালি জাতিকে বিশ্বের দরবারে বিজয়ী জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ২০২১ সালের মধ্যে উন্নয়নশীল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সকল মাপকাঠি পূর্ণ করেছেন। সামনের দিনগুলোতে তিনি ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি অর্জন এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত সমৃদ্ধশালী এবং স্মার্ট বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

এই রকম আরও টপিক