কুয়েত অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৩ সন্দেহভাজন আটক

সংগৃহীত ছবি

কুয়েত অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ৩ সন্দেহভাজন আটক

অনলাইন ডেস্ক

কুয়েতে বিদেশি শ্রমিকদের একটি বাসভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় সন্দেহভাজন তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের আটক করার বিষয়ে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) জানিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। নিচতলায় গার্ডের কক্ষে বৈদ্যুতিক ত্রুটির কারণে আগুনের সূত্রপাত। খবর এএফপির।

পাবলিক প্রসিকিউশন সার্ভিস জানিয়েছে, নিরাপত্তা ও অগ্নি বিধির অবহেলার মাধ্যমে হত্যাকাণ্ডের সন্দেহে একজন কুয়েতি এবং দুইজন বিদেশিকে আটক করা হয়েছে। ওই ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ৫০ জন বিদেশি শ্রমিক মারা গেছে। নিহতদের বেশির ভাগই ভারতীয়।

ম্যানিলার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কুয়েত শহরের দক্ষিণে ছয় তলা ভবনে সবাই আটকা পড়ে তিনজন ফিলিপাইনের নাগরিক মারা গেছে।

আরো অনেকেই আহত হয়েছে।

বুধবার ভোরের দিকে ভবনটিতে আগুন লাগে। মাংগাফ এলাকার ওই ভবনটিতে প্রায় ২০০ জন শ্রমিক বাস করত। এছাড়া এই এলাকাটিতে অনেক বিদেশি শ্রমিক থাকেন। জেনারেল ফায়ার ফোর্স পরিদর্শন শেষে জানিয়েছে, নিচতলায় গার্ডের কক্ষে বৈদ্যুতিক ত্রুটির কারণে আগুনের সূত্রপাত হয়।

৪৯ জনকে মৃত ঘোষণা করার পর বুধবার কুয়েতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইয়াহিয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘আহতদের মধ্যে একজন মারা গেছে। এদিকে নিহতদের অধিকাংশই ভারতীয়। অন্যান্য দেশেরও আছে কিন্তু আমার ঠিক মনে নেই। ’

নিরাপত্তা বিধি লঙ্ঘন করে এমন যেকোনো ভবন বন্ধ করার হুঁশিয়ারি করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ ফাহদ আল ইউসেফ বুধবার বলেন, শ্রমিকদের ঠাসঠাসি করে রাখা এবং তাদের প্রতি অবহেলা বন্ধ করতে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কুয়েত সরকার।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিহতের পরিবারকে দুই লাখ রুপি প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন।

অভিবাসী শ্রমিকদের সেক্রেটারি হ্যান্স লিও জে ক্যাড্যাক এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করছি।

২০০৯ সালে একটি অগ্নিকাণ্ডে ৫৭ জন মারা গিয়েছিল। স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ে করার প্রতিশোধ নিতে পার্টির তাঁবুতে আগুন লাগিয়েছিল এক নারী।

news24bd.tv/DHL

পাঠকপ্রিয়